অস্ট্রেলিয়ার ফেডারেল নির্বাচনে প্রথম বাংলাদেশী প্রতিদ্বন্দ্বী শাহে জামান টিটু

Tito 13406873_537386503134705_3659242999094613662_n

নাইম আবদুল্লাহ, সিডনি: প্রবাসী বাংলাদেশী ব্যবসায়ী শাহে জামান টিটু আগামী ২রা জুলাই অনুষ্ঠিতব্য অস্ট্রেলিয়ান ফেডারেল নির্বাচনে ওয়াটসন আসন থেকে এমপি পদে সাবেক ইমিগ্রেশন মিনিস্টার ও লেবার পার্টির বর্তমান এমপি টনি বার্কের সাথে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। টিটু হলেন প্রথম বাংলাদেশী যিনি অষ্ট্রেলিয়ান ফেডারেল নির্বাচনে বর্তমান ক্ষমতাসীন দল লিবারেল পার্টি থেকে নমিনেশন পেয়েছেন।

অস্ট্রেলিয়ার প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী জন ওয়াটসনের নাম অনুসারে ওয়াটসন নির্বাচনী এলাকার নামকরণ করা হয়। ৪৭ বর্গ কিলোমিটার আয়তনের নির্বাচনী এলাকায় এই আসনটিতে ১৯৪০ সাল থেকে লেবার পার্টির প্রার্থীরা বিজয়ী হয়ে আসছে। তবে বহুজাতিক অভিবাসীদের আবাসস্থল এই নির্বাচনী এলাকায় বাংলাদেশীদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা থাকার কারণে বিজ্ঞজনদের অভিমত, দলমত নির্বিশেষে সবাই যদি টিটুকে ঐক্যবদ্ধভাবে সমর্থন করে তবে ইতিহাস সৃষ্টি করে বিজয় ছিনিয়ে আনা সম্ভবপর হবে।

এই নির্বাচনের সাথে জড়িয়ে আছে প্রবাসী বাংলাদেশীদের স্বার্থ ও ক্ষমতায়নের প্রশ্ন। ব্রিটেন ও ক্যানাডার পর অস্ট্রেলিয়ায় জাতীয় নির্বাচনে শাহে জামান টিটুর প্রার্থিতা এদেশের মূলধারার রাজনীতিতে বাংলাদেশীদের সম্পৃক্ততার একটি অন্যতম উদাহরন এবং সেই সাথে বহুজাতিক এই উন্নত সমাজ ও রাষ্ট্রীয় ব্যবস্থায় আমাদের নেতৃত্ব গ্রহনের যোগ্যতারও পরিচয় বহন করে।

শাহে জামান টিটু ল্যাকেম্বা বেলমোর চেম্বার্স অব কমার্সের সাধারণ সম্পাদক, বাংলাদেশী গ্রোসারি শপ বাংলাদেশ প্যালেসের স্বত্বাধিকারী, বাংলাদেশ অস্ট্রেলিয়া বিজনেস কাউন্সিলের নির্বাহী সদস্য। এছাড়াও তিনি ক্যান্টারবারী সিটি কাউন্সিলের সাথে কাজ করছেন। ব্যাক্তিজীবনে স্ত্রী সাজেদা টিটু আর দুই ছেলেকে নিয়ে তার ছোট্ট সংসার।

সদা হাসোজ্জল, সদালাপি, বিনয়ী শাহে জামান টিটু নির্বাচনী ইস্তেহারে বলেছেন,বিজয়ী হলে তিনি ওয়াটসন এলাকায় স্থানীয় ব্যবসায়ীদের সুযোগ সুবিধা বৃদ্ধি, বহুতল বিশিষ্ট পার্কিং নির্মাণ, রাস্তাগুলোতে নূতন কার্পেটিং, মানসম্মত বাংলা স্কুল প্রতিষ্ঠাসহ প্রবাসী বাংলাদেশীদের জন্য কমিউনিটি সেন্টার তৈরি করবেন।

শাহে জামান টিটুর জন্ম ঢাকার মিরপুরে। তিনি ২০০৫ সালে জাপানে অনুষ্ঠিত ওয়ার্ল্ড এক্সপো” তে অপারেশন ডিরেক্টর হিসাবে বাংলাদেশ প্যাভিলিয়নের দায়িত্ব পালন করে। ঐ বছর থেকেই তিনি সিডনিতে স্থায়ীভাবে বসবাস শুরু করেন। টিটু অস্ট্রেলিয়া প্রবাসি সকল বাংলাদেশীদের সার্বিক সহযোগিতা কামনা করেছেন।

Authors
  
Top