‘আগামী জাতীয় নির্বাচনে সেনা থাকছে, ইভিএম না’

cec nurul huda

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইভিএম বাদ দিয়ে সেনাবাহিনী মোতায়েনের পরিকল্পনা করছে নির্বাচন কমিশন ( ইসি)। নির্বাচন কমিশনার মাহবুব তালুকদার বলেন, প্রধান নির্বাচন কমিশনারসহ সব কমিশনারের সঙ্গে আমার কথা হয়েছে, তারা সবাই আগামী সংসদ নির্বাচনে সেনাবাহিনী মোতায়েনের পক্ষে মত দিয়েছেন। তবে এখনও কমিশন বৈঠকে এটি উঠানো হয়নি।
আজ সোমবার নির্বাচন ভবনে আলাপকালে তিনি এসব কথা বলেন।

নির্বাচনে কি পরিসরে সেনা থাকবে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, সময় বলে দিবে কি পদ্ধতিতে সেনাবাহিনী থাকবে। ম্যাজিস্ট্রেটের পাওয়ার থাকবে কি থাকবে না। তবে আমি বলবো সংসদ নির্বাচনে সেনা থাকছেই।

ইভিএম সম্পর্কে তিনি বলেন, রংপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনসহ অন্য সিটিতে সীমিত পরিসরে ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিন ইভিএম ব্যবহার করা হলেও সংসদ নির্বাচনে এ মেশিন ব্যবহার করা সম্ভব নয়। এত বড় নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারের জন্য কমিশনও প্রস্তুত নয়। ইসির হতে সময় কম।

তিনি বলেন, আগের সব ইভিএম আমরা নষ্ট করে ফেলে দিয়েছি। এখন যে দুই একটা রাখা হয়েছে সেগুলো দিয়ে আমরা সিটি কর্পোরেশনে পরীক্ষামূলক ব্যবহার করবো। আমরা এটি ব্যবহার করতে না পারলেও আগামী কমিশন যাতে পারে সে জন্য এটি পরীক্ষামূলক চালাচ্ছি।

ইসি সূত্র জানায়, একাদশ জাতীয় সংসদের রোডম্যাপে ইভিএম এর বিষয়টি উল্লেখ করা হয়নি। তাছাড়া ইভিএম ব্যবহার নিয়ে ইসির কাছে পাল্টাপাল্টি প্রস্তাব এসেছে। আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ইভিএম ব্যবহারের প্রস্তাব এসেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে।

অপরদিকে নির্বাচন কমিশনের সঙ্গে সংলাপে বিএনপি বলেছে, জাতীয় নির্বাচনে কোনোভাবেই ইভিএম বা ডিভিএম পদ্ধতি বা এ জাতীয় কোনো যন্ত্র ব্যবহার করা যাবে না। শুধু বিএনপি নয়। অধিকাংশ রাজনৈতিক দল ইভিএম ব্যবহারের বিপক্ষে মত দিয়েছে। এ অবস্থায় নির্বাচন কমিশনের আনুষ্ঠানিক সিদ্ধান্তের অপেক্ষায় রয়েছে রাজনৈতিক দলগুলো।

অপরদিকে যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে পুরনো প্রায় এক হাজার ইভিএম অকেজো করার উদ্যোগ গ্রহণ করেছে ইসি। এ লক্ষ্যে একটি কমিটিও কাজ করছে। আর নতুন করে ইভিএম তৈরির কাজও চলছে। সেগুলো ব্যবহার হবে স্থানীয় সরকার নির্বাচনে ভোটগ্রহণের কাজে।

Authors
  
Top