আর ট্রাভেলস এর প্রচার উপলক্ষে সিডনিতে প্রিমিয়ার শো

আর ট্রাভেলস 1

নাইম আবদুল্লাহ: আগামী ৬ অগাস্ট থেকে প্রতি বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ছয়টায় টেলিভিশন চ্যানেল আর টিভিতে দীর্ঘ ধারাবাহিক আর ট্রাভেলস এর প্রচার শুরু হচ্ছে।

এই উপলক্ষে আগামী ৪ অগাস্ট সিডনিতে অস্ট্রেলিয়ায় নির্মিত আর ট্রাভেলস এর একটি বিশেষ প্রিমিয়ার শো অনুষ্ঠিত হবে। এই জমকালো অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন আর টিভির প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ আশিক রহমান।

অস্ট্রেলিয়া প্রবাসী নাট্যকার ও পরিচালক আকিদুল ইসলাম এই দীর্ঘ ধারাবাহিকটি পরিকল্পনা ও পরিচালনা করছেন।

তিনি জানান, প্রতিটি পর্বেই অস্ট্রেলিয়ার স্থানীয় দর্শনীয় স্থানগুলির পাশাপাশি ইতিহাস ও ঐতিহ্যকে গুরুত্ব দিয়ে এই ভ্রমণ চিত্রের পরিকল্পনা করা হয়েছে। সিডনিসহ অস্ট্রেলিয়ার বিভিন্ন এলাকায় এই দীর্ঘ ধারাবাহিকটির চিত্রায়ন করা হয়েছে। অস্ট্রেলিয়া ও বাংলাদেশে ছাড়াও পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে এর চিত্রায়ন করা হবে। বহির্বিশ্বে চিত্রায়নের অংশ হিসেবে আর ট্রাভেল টিম আগামী সেপ্টেম্বরে থাইল্যান্ড যাচ্ছে। পরবর্তী সময়ে নিউজিল্যান্ড, ফিজি, থাইল্যান্ড, সিংগাপুর, মালয়েশিয়া সহ অন্যান্য দেশে অনুষ্ঠানটির দৃশ্যধারণের পরিকল্পনা রয়েছে।

তিনি আরও জানান, এই দীর্ঘ ধারাবাহিকটি মূলত অস্ট্রেলিয়ার সমসাময়িক ও ঐতিহাসিক তথ্য ও উপাত্তসমুহের চিত্রায়িত রূপ।পাশাপাশি অস্ট্রেলিয়ায় বসবাসকারী সত্তর হাজারেরও বেশী প্রবাসী বাংলাদেশীদের নিত্যদিনের জীবন- সংগ্রাম, হাসি-কান্না, সুখ-দুঃখ ও সাফল্য অর্জনের ইতিহাস অতি যত্ন সহকারে তুলে ধরা হয়েছে।

অস্ট্রেলিয়ার রাজধানী ক্যানবেরায় অস্ট্রেলিয়ান টাকশালে কয়েন তৈরি হয়। আর ট্রাভেলস এর ক্যামেরা ঐ টাকশালে সারাদিন ঘুরে খুব কাছে থেকে কয়েন তৈরী করা দেখেছে। পাশাপাশি দর্শকদের জন্য ধারন করেছে এক অতি বিস্ময়কর অভিজ্ঞতা। এই টাকশালেই কখনো কখনো তৈরী হয় বাংলাদেশী কয়েন। আর অন্যান্য দেশের পাশাপাশি বাংলাদেশের নামটি অস্ট্রেলিয়ার টাকশালের দেয়ালে লেখা আছে আলোকিত অক্ষরে।

বাংলাদেশের থেকে আয়তনে প্রায় ৫০ গুন বড় প্রশান্ত মহাসাগরের এই দেশ অস্ট্রেলিয়া। জনসংখ্যা মাত্র ২ কোটি। শান্তি, সমৃদ্ধি, সভ্যতা ও সংস্কৃতির এক অপূর্ব জনভূমি। এই মহাদেশের অতীত ইতিহাস, ঐতিহ্য, কৃষ্টি আর দর্শনীয় জায়গাগুলোর বর্ণনাসহ প্রবাসী বাংলাদেশীদের জীবন আলেখ্য এবং বঙ্গোপসাগরের তীর থেকে উঠে এসে কিভাবে এই প্রশান্ত মহাসাগরের তীরে বসতি স্থাপন করা যায় তার অনুসন্ধানী, ঐতিহাসিক তথ্য ও উপাত্ত সনিয়ে নির্মিত দীর্ঘ ধারাবাহিক চিত্র ‘আর ট্রাভেলস(R Travels)। নামকরণ ট্রাভেল ডকুমেন্ট হলেও এটি মূলত একটি ইতিহাসের আলোকিত অনুষঙ্গ।

এই ধারাবাহিক ভ্রমণ চিত্রের উপস্থাপনায় রয়েছেন, শামান্তা ইসলাম এবং রুপন্তি। সহকারী পরিচালক হিসেবে কাজ করেছেন প্রভাত হাসান ও সুলতানুল আরেফিন। তাদের সঙ্গে থাকছেন এক ঝাঁক মেধাবী তরুণ তরুণী। অস্ট্রেলিয়া কেন্দ্রিক নির্মাণ প্রতিষ্ঠান বাসভূমি’র ব্যানারে নির্মিত এই ভ্রমণ চিত্রটি কয়েক শত পর্বের হবে বলে নির্মাণ প্রতিষ্ঠান সূত্রে জানা গেছে।

গত একযুগ ধরে অস্ট্রেলিয়া কেন্দ্রিক নির্মাণ প্রতিষ্ঠান বাসভূমি’ ধারাবাহিক নাটক, টেলিফিল্ম, খণ্ড নাটক ও প্রামাণ্য চিত্র সহ বিভিন্ন ধরনের অনুষ্ঠান নির্মাণ করছে।প্রবাসে প্রথম কোন বাংলা নির্মাণ প্রতিষ্ঠান এই ধরনের একটি দীর্ঘ ধারাবাহিক নির্মাণ ও পরিচালনা শুরু করছে।

আর ট্রাভেলস 2 আর ট্রাভেলস

 

 

 

 

 

 

Authors
Top