চ্যানেল আই এর বিরুদ্ধে বিজ্ঞাপন জালিয়াতি ও মানি লাউন্ডারিং এর অভিযোগ !!!

channel-i-download

বিজ্ঞাপন জালিয়াতি চক্রের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেলের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফরিদুর রেজা সাগরকে নব্য সাংস্কৃতিক রাজাকার’ বলে মন্তব্য করেছেন এটিএন বাংলার চেয়ারম্যান মাহফুজুর রহমান।
রোববার (১৩ নভেম্বর) দুপুরে ঢাকা ক্লাবে মিডিয়া ইউনিটির এক সমাবেশে এ কথা বলেন তিনি।
মাহফুজুর রহমানের বক্তব্যের আগে মিডিয়া ব্যক্তিত্ব হানিফ সংকেত তার বক্তব্যে বলেন, বিদেশী চ্যানেলে বিজ্ঞাপন প্রচার করছে কোন জালিয়াতি চক্র বা কোন ব্যক্তি এই চক্রের সঙ্গে জড়িত- আজকে তা পরিষ্কার করতে হবে। তার নাম সবাইকে জানাতে হবে। একটি চ্যানেল আছে, সেখানে অনেক প্রচার পাওয়া কাঙ্গাল শিল্পী রয়েছে, তারা সেখানে গিয়ে বলেন এটা আমার পরিবার। প্রচার পাওয়া এসব কাঙ্গাল, ভন্ডদের দলে যোগ দিলে হবে না।’
হানিফ সংকেতের এ বক্তব্যের জের ধরে মাহফুজুর রহমান বলেন, ‘একটি জালিয়াত চক্র বিদেশি চ্যানেলে বাংলাদেশি বিজ্ঞাপন প্রচার করছে, হানিফ সংকেত তা জেনেও বললো না। আমি বলি, যে ব্যক্তি এই কাজ করছে তার সঙ্গে আমার ঘনিষ্ট সম্পর্ক এবং পরিচয় আছে। তিনি আমাদের সাগর ভাই।’
তিনি বলেন, ‘সাগর ভাই আপনাকে বলবো- এই কাজ বন্ধ করেন। মানিলন্ডারিং বন্ধ করেন। দেশীয় প্রতিষ্ঠানের বুকে লাথি মারবেন না। এতোগুলো মানুষের পেটে লাথি মারবেন না। একা না খেয়ে সবাইকে খেতে দেন। ৩০ নভেম্বরের মধ্যে এ কাজ বন্ধ না করলে আপনি হবেন ‘সাংস্কৃতিক রাজাকার’। বাংলাদেশে তো সব রাজাকার শেষ-আপনাকে ‘নব্য রাজাকার’ বানাতে দ্বিধা করবো না’।
মাহফুজুর রহমান আরও বলেন, আমরা ২৬টি টেলিভিশন চ্যানেল এক সঙ্গে আছি। এ ২৬টি চ্যানেল ছেড়ে যেসব শিল্পীরা একটি চ্যানেলের সঙ্গে থাকবে- তাদের বয়কট করা হবে। তাদের ভবিষ্যতে এসব চ্যানেলের কাজে নেওয়া হবে না।
আরটিভির চেয়ারম্যান মোরশেদ আলম বলেন, দেশীয় বিজ্ঞাপন বাইরের চ্যানেলে প্রচার করা নীতি বির্বজিত কাজ। এর পেছনে রাঘব বোয়ালরা রয়েছে। ঐক্যবদ্ধভাবে তাদের মোকাবেলা করতে হবে।
এ সময় প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা ও ইন্ডিপেন্ডেন্ট চ্যানেলের চেয়ারম্যান সালমান এফ রহমান, একুশে টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও বিএফইউজে’র সভাপতি মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল, বাংলাদেশ প্রতিদিনের সম্পাদক ও নিউজ টোয়েন্টিফোরের সিইও নঈম নিজাম, ৭১ টিভির নির্বাহী প্রধান ও মিডিয়া কমিটির আহ্বায়ক মোজাম্মেল বাবু, অভিনেতা জাহিদ হাসান, শহীদুজ্জামান সেলিম, নির্মাতা গাজী রাকায়েতসহ বিভিন্ন গণমাধ্যম ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও সাংস্কৃতিক কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

Authors
Top