দক্ষিণ আফ্রিকা সফর। সাকিব বিশ্রামে, ফিরলেন মাহমুদউল্লাহ

Mahmudullah-1

মুশফিকুর রহিম (অধিনায়ক), তামিম ইকবাল, সৌম্য সরকার, ইমরুল কায়েস, সাবি্বর রহমান, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, লিটন দাস, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, মুস্তাফিজুর রহমান, রুবেল হোসেন, শফিউল ইসলাম, তাসকিন আহমেদ, শুভাশিস রায়, মুমিনুল হক

পাঁচ পেসার নিয়ে দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের জন্য টেস্ট দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। সোমবার বিকালে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে আনুষ্ঠানিকভাবে ১৫ সদস্যের দল ঘোষণা করেন প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন নান্নু। বিশ্রাম চাওয়া সাকিব আল হাসানকে রাখা হয়নি দলে। তার পরিবর্তে ডাক পেয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে খেলা স্কোয়াড থেকে বাদ পড়েছেন নাসির হোসেন। এছাড়া দলে ডাক পেয়েছেন রুবেল হোসেন ও শুভাশিষ রায়।

টানা ক্রিকেট খেলার কারণে ক্লান্ত সাকিব, অবসাদগ্রস্তও হয়ে পড়েছেন। তাই টেস্ট থেকে ছয় মাসের বিশ্রাম চেয়ে বিসিবি বরাবর লিখিত দিয়েছিলেন তিনি। বিষয়টি বিবেচনায় নিয়েই তাকে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে দুই টেস্টের সিরিজে বাইরে রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিসিবি। নাসির দীর্ঘবিরতির পর ফিরেছিলেন দলে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ২৩ ও ৪৫ রানের দুটো কার্যকরি ইনিংস খেললেও বাকি দুই ইনিংসে ব্যর্থ হয়েছেন তিনি। প্রত্যাশা মেটাতে না পারার মূল্য দিতে হয়েছে তাকে।

সোমবার দক্ষিণ আফ্রিকা সফরের জন্য আনুষ্ঠানিকভাবে টেস্ট দল ঘোষণার আগেই বিসিবির ক্রিকেট পরিচালনা বিভাগের প্রধান আকরাম খান জানিয়ে দেন, সাকিবকে বিশ্রাম দেয়ার বিষয়টি। তবে সাকিব চাইলে প্রোটিয়াদের বিপক্ষে দ্বিতীয় টেস্টে খেলতে পারবেন, এই পথটাও খোলা রেখেছে দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থাটি, এমনটাও জানিয়ে রাখলেন আকরাম, ‘আমরা অনেক আলাপ-আলোচনা করেছি। আপাতত দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে প্রথম এবং দ্বিতীয় টেস্টে ওকে রাখছি না। তবে সিরিজের দ্বিতীয় টেস্টে ও যদি খেলতে চায়, আমরা ওকে নেব। যে সে চিন্তাভাবনা বদলায়, সেজন্য একটা বিকল্প উপায় রেখেছি। তবে সে আপাতত টেস্ট দলের সঙ্গে যাচ্ছে না।’

বাংলাদেশ দলের অপরিহার্য অংশ সাকিব। দক্ষিণ আফ্রিকার মতো শক্তিধর দলের বিপক্ষে সিরিজে তাকে বিশ্রাম দেয়ার সিদ্ধান্ত কেন নিয়েছে বিসিবি? এমন প্রশ্নের জবাবে আকরাম বলেছেন, ‘সে আমাদের খুবই গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়। একই সঙ্গে ওর অবস্থাও দেখতে হবে। সে মানসিক এবং শারীরিকভাবে কি অবস্থায় আছে, সেটাও আমাদের দেখতে হবে। আমরা চাই না বাংলাদেশ দল ক্ষতিগ্রস্ত হোক, মাশরাফির মতো সেও চোটে পড়ুক।’ দক্ষিণ আফ্রিকায় অবশ্য ওয়ানডে আর টি২০ সিরিজে খেলবেন সাকিব। তার অনীহা কেবলই টেস্টে। আকরাম অবশ্য অনীহা কথাটাতে আপত্তি জানালেন, ‘টেস্টে তার পারফরম্যান্স খুবই ভালো। মনে হয় না টেস্ট ক্রিকেট থেকে তার মন উঠে গেছে।’
এদিকে, সাকিবের অনুপস্থিতিতে দলে অভিজ্ঞতা বাড়াতে ডাকা হয়েছে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদকে। গত মার্চে শ্রীলংকা সফরে গলে প্রথম টেস্টে খেলার পর দ্বিতীয় টেস্টের দল থেকে বাদ পড়েছিলেন ডানহাতি মিডলঅর্ডার ব্যাটসম্যান। খেলা হয়নি ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে সিরিজেও। এই সময়টায় বসে না থেকে ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগ খেলতে চলে গিয়েছিলেন মাহমুদউল্লাহ। মিশন শেষে রোববার রাতে দেশে ফিরেছেন তিনি। দেশে ফিরে পরদিনই পেলেন টেস্ট দলে ফেরার সুখবর।
গতিময়-বাউন্সি উইকেটে মাহমুদউল্লাহর সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স বেশ উজ্জ্বল। অস্ট্রেলিয়া-নিউজিল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ২০১৫ বিশ্বকাপে জোড়া সেঞ্চুরির পর চলতি বছর ইংল্যান্ডে আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফিতেও সেঞ্চুরি হাঁকিয়েছেন। দক্ষিণ আফ্রিকার গতিময়-বাউন্সি উইকেটে তিনি সফল হতে পারেন, সেই সঙ্গে সাকিবের অনুপস্থিতিতে একজন অলরাউন্ডারের ঘাটতি পূরণের জন্য তাকে দলে ফেরানো হয়েছে। এ বিষয়ে প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদীন বলেছেন, ‘যেহেতু সাকিব নেই, সেক্ষেত্রে মাহমুদউল্লাহর মতো একজন অলরাউন্ডার দলের জন্য জরুরি। তাছাড়া বিদেশের মাটিতে মাহমুদউল্লাহর পারফরম্যান্স ভালো। এসব বিষয় বিবেচনা করেই তাকে দলে রাখা হয়েছে।’
অস্ট্রেলিয়া সিরিজে বিতর্কিতভাবে বাদ পড়া মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতের জায়গায় ডাক পাওয়া মুমিনুল হকও আছেন স্কোয়াডে। তাইজুল ইসলাম এবং অলরাউন্ডার মেহেদী মিরাজের সঙ্গে সাকিবের ঘাটতি মেটাতে কোনো বিশেষজ্ঞ স্পিনার দলে নেয়া হয়নি। সেটা সেখানকার পেসসহায়ক উইকেটের কথা মাথায় রেখেই। সেই ভাবনা থেকেই স্কোয়াডে রাখা হয়েছে ৫ পেসার। তবে আলোচনায় থাকা ডানহাতি পেসার কামরুল ইসলাম রাবি্বকে পেছনে ফেলে আরেক পেসার শুভাশিস রায় চৌধুরীর স্কোয়াডে ঢুকে পড়াটা চমক হয়েই এসেছে।

Authors
Top