পাইবাসের পরিকল্পনায় মুগ্ধ বিসিবি

pibas 1

চন্ডিকা হাথুরুসিংহের উত্তরসূরি হচ্ছেন রিচার্ড পাইবাস। আগামী জানুয়ারির শুরুতেই আসছে শ্রীলঙ্কা। যে দলটির বর্তমান কোচ সদ্য সাবেক হওয়া কোচ হাথুরুসিংহে। তাই এ সিরিজই টাইগারদের জন্য বিশেষ এক সিরিজ। এ সিরিজের আগেই বাংলাদেশের কোচ নিয়োগের প্রাণপণ চেষ্টা করছে বিসিবি। আর সেই উদ্দেশ্যে মঙ্গলবার ঢাকায় এসে বুধবার সকাল ১১টায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) কাছে পরীক্ষা দিয়েছেন টাইগারদের সাবেক কোচ রিচার্ড পাইবাস। তিনিই মাশরাফি-সাকিব-মুশফিকদের কোচ হচ্ছেন কিনা, সেটা সময়ই বলে দেবে। দেশের ক্রিকেটকে এগিয়ে নেয়ার জন্য ১০ বছরের দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনা দিয়েছেন ইংলিশ বংশোদ্ভূত এ দক্ষিণ আফ্রিকান। আর তার এ পরিকল্পনায় মজেছে বিসিবি। এটা বাস্তবায়ন করতে পারলে দেশের ক্রিকেট অনেক এগিয়ে যাবে বলে মনে করেন বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।
বিসিবি সভাপতি আকৃষ্ট হয়েছেন বটে কিন্তু পাইবাসকে চূড়ান্ত করেননি। কেননা আরো দুই কোচকে পরখ করে দেখা বাকি আছে। এ দুজনের একজন  হচ্ছেন ক্যারিবীয় ফিল সিমন্স এবং অপরজন জিওফ মার্শ। পাইবাসের উপস্থাপনায় ( প্রেজেন্টেশন) মুগ্ধ বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসান জানান, নিঃসন্দেহে তার উপস্থাপনা ভালো ছিল। শুধু বর্তমান নয়, সে ভবিষ্যৎ নিয়েও কথা বলেছে। ১০ বছরের একটা পরিকল্পনা নিয়ে এসেছে। সংক্ষিপ্ত এবং দীর্ঘমেয়াদি দুটিই দেখতে হবে। সামনে বিশ্বকাপ আছে। সেটাও আমাদের জন্য অনেক গুরুত্বপূর্ণ। ও যা চায়, যে রকম বলছে, এখনই হয়তো তা করতে পারব না। তবে ধাপে ধাপে পরিকল্পনাগুলো কাজে লাগাতে পারলে বাংলাদেশের জন্য ভালোই হবে।
পাইবাসের সঙ্গে বিসিবির আগের অধ্যায় কতটা তিক্ততায় ভরা ছিল, সেটি অজানা নয় নাজমুলের। ইংল্যান্ডে জন্ম নেয়া এই দক্ষিণ আফ্রিকান কোচ কেন তখন বিসিবির বিরুদ্ধে বিষোদগার করেছিলেন, সেটিও তাকে জিজ্ঞেস করা হয়েছে বুধবার। উত্তরে পাইবাস কী বলেছেন, সেটি অবশ্য সংবাদমাধ্যমকে বলতে নারাজ নাজমুল। বরং এড়িয়ে গেলেন ‘আগের বোর্ডের বিষয়’ বলে।
এবার পাইবাস নিজ থেকেই কেন বাংলাদেশ দলের কোচ হতে আগ্রহী, সেটির ব্যাখ্যা অবশ্য দিয়েছেন নাজমুল, সে শতভাগ নিজ থেকেই আগ্রহ প্রকাশ করেছে। তার কাছে মনে হয়েছে বাংলাদেশ দল এখন ভালো করছে। দলটা একটা পর্যায়ে পৌঁছেছে। এখন যেভাবে বাংলাদেশের ক্রিকেট চলছে, শুধু সে নয়, অন্যান্য পেশাদার কোচও বিসিবির সঙ্গে কাজ করতে আগ্রহী। কয়েক দিনের মধ্যে ওয়েস্ট ইন্ডিজ ও আয়ারল্যান্ডের সাবেক কোচ ফিল সিমন্স এবং অস্ট্রেলিয়ার সাবেক কোচ ও নির্বাচক জিওফ মার্শের আসার কথা রয়েছে। আসতে পারেন অস্ট্রেলিয়ার সাবেক ক্রিকেটার লাস্টিন ল্যাঙ্গারও। বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন বলেছেন, ১০ ডিসেম্বর বোর্ড সভায় কোচের বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত হতে পারে, আমরা কোচিং স্টাফদের সঙ্গে ৯ তারিখে আলোচনায় বসব। তার আগে টিম ম্যানেজার খালেদ মাহমুদ সুজন দেশের টেস্ট, ওয়ানডে ও টি-টোয়েন্টি দলের তিন অধিনায়কের সঙ্গে আলোচনা করবেন। ১০ তারিখে বোর্ড সভায় আমরা একটা সিদ্ধান্ত নিতে চাইছি।

Authors
  
Top