মেহেদি রাঙা হাত

Mehndi-design

মেয়েদের সাজসজ্জার প্রয়োজনীয় অনুষঙ্গ। আগে আমাদের দেশসহ উপমহাদেশের দেশগুলোয় মেহেদি গাছ থেকে পেড়ে বেটে দেয়ার প্রচলন ছিল। এখনো সে ধারাটি বর্তমান। তবে তার সঙ্গে আধুনিক মেয়েরা টিউব মেহেদি কিনে বিভিন্ন নকশার মাধ্যমে হাতে ও পায়ে মেহেদি লাগান। ফুল ও লতাপাতার এক মনোরম চিত্র তুলে ধরেন তাদের হাতের পাতায়। হয়ে ওঠেন আরো কিছুটা মোহনীয়Ñ রূপসী।

মেহেদির টিউব দিয়ে অনায়াসে করে নিতে পারেন মনের মতো নকশা।

হাতের কনুই ছাপিয়ে কিছু দূর পর্যন্ত জমকালো ডিজাইনে মেহেদি দেয়াটাই এখন সব তরুণীরই পছন্দ। উৎসবের সময় পিঠের উপরাংশে বা হাঁটু অবধি মেহেদি লাগাচ্ছেন অনেকেই। আফ্রিকান, অ্যারাবিক আর ভারতীয় এই তিন পদ্ধতিতে এ দেশে মেহেদি লাগিয়ে থাকেন বাঙালি ললনারা। কেউ কেউ বাড়তি সংযোজন হিসেবে পার, বিডস বা গ্লিটার ব্যবহার করে থাকেন। মেহেদির বিবিধ নকশা নিয়ে কাজ করছেন সুহানা খুসবু। ফেসবুকের মাধ্যমে ব্যাপক জনপ্রিয় হয়েছে তার মেহেদির নকশা নিয়ে কাজকরাগুলো। তিনি জানান, তরুণীর অবশ্যই মেহেদি রাঙানো হাতের সঙ্গে লাল, মেরুন বা কোনো গাঢ় রঙের নেইল পলিশ ব্যবহার করলে ভালো হবে। মেহেদিতে হাত রাঙানোর ¶েত্রে অবশ্যই সাবধানী হোন। আজকাল মেহেদি কেবল হাতের তালুতেই ঠাঁই পায় না, অনেকে পা কিংবা বাজুতেও মেহেদি লাগাতে ভালোবাসেন। পায়ের পাতার চারপাশে আলতার মতো করে মেহেদির রেখা টেনে দিতে পারেন। কিংবা মাঝামাঝি লতানো ধরনের নকশা করতে পারেন। হাতাকাটা পোশাক পরলে বাজুতেও মেহেদি দিয়ে ছোট্ট করে ডিজাইন এঁকে নিতে পারেন। তবে যেখানেই দেয়া হোক না কেন, মেহেদির নকশায় নিজ¯^তার প্রতিফলন থাকা জরুরি। বিশেষ ক্ষেত্রে, নকশা বা বিভিন্ন মোটিভ ব্যবহারের ¶েত্রে এ·পার্টদের সাহায্য নেয়াটাই উত্তম।

Authors
Tags

Related posts

Top